দিল্লি হাইকোর্ট সম্প্রতি শোনা একটি জনস্বার্থ মামলা দ্বারা Prof. Shamnad Basheer যার মাধ্যমে তিনি থেকে দৃষ্টান্তমূলক ক্ষতি চাওয়া হয়েছে ভারতের একটি স্বতন্ত্র সনাক্তকারী কর্তৃপক্ষ (UIDAI), for “negligence/ wilful recklessness”. The petition claims that such negligence has resulted in repeated compromising of the গোপনীয়তা এর আধার বিভিন্ন মাধ্যমে হোল্ডার উপাত্ত breaches and demands the deactivation of all existing Aadhaars as well as the deletion of all উপাত্ত stored therewith.

The petition does not, however, challenge the শাসনতান্ত্রিক বৈধতা আধার, but alleges that UIDAI violates the rules and regulations laid down in the তথ্যপ্রযুক্তি আইনে, 2000, and the আধার Act, 2016. Specific attention is drawn to Section 28 of the আধার Act, Further, it alleges a violation of the petitioner’s মৌলিক অধিকার থেকে গোপনীয়তা under Article 21 of the Constitution, which was upheld in the Puttaswamy judgment last year.

The petition was, however, set aside by the court for hearing in August, subsequent to the Supreme Court Constitution Bench pronouncing its judgment in the আধার hearings which concluded on May 10.

Prof. Basheer is a legal scholar and founder of Increasing Diversity by Increasing Access to Legal Education (IDIA) who was পুরস্কার প্রদান করা ইনফোসিস পুরস্কার in Humanities in 2014 “for his outstanding contributions to a broad range of legal issues and legal education”.


1 মন্তব্য

ড ভরদ্বাজ কে.এস. · আগস্ট 18, 2018 এ 3:11 অপরাহ্ন

Can Everyone Buy And Face Such Headaches For The Utter Carelessness Of The @UIDAI ? Is It Not Torture Of Innocent And Law Obying People? #DestroyTheAadhaar. @AadhaarFail

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।